ভূ- রাজনীতি বিষয়ক স্থানের নাম

১। ডোকলাম মালভূমি- ভারত , চীন & ভুটান সীমান্তে
২। লাদাখ- ভারতের জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যে অবস্হিত।
৩। আল উদেইদ’ — কাতারে অবস্হিত। মধ্যপাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম বিমানঘাঁটি।
৪। কাতালোনিয়া’ শহর – স্পেনে অবস্হিত। স্পেন থেকে স্বাধীন হওয়া / স্বাধীনতার জন্য গণভোটের দাবিতে কাতালোনিয়ার নাগরিকরা দীর্ঘদিন যাবৎ আন্দোলন করছে ।
৫। হাম্বানটোটা- গভীর সমুদ্রবন্দর । শ্রীলংকায় অবস্থিত চীনের মালিকাধীন
৬। হামফ্রেইস – সামরিক ঘাঁটি। দক্ষিণ কোরিয়ায় অবস্থিত। যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে এটাই যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম সামরিক ঘাঁটি।
৭।গুয়াম – প্রশান্ত মহাসাগরে অবস্থিত আমেরিকার সামরিক ঘাঁটি
৮।মারায়ি – মুসলিম অধ্যুষিত অঞ্চল। মিন্দানাও দ্বীপে অবস্হিত ( ফিলিপাইন )।
৯। কোবান -সিরিয়ার কুর্দি অধ্যুষিত শহর।১০।আলেপ্পো শহরটি সিরিয়ায় অবস্হিত ।
১১। দেইর আজ- যোর শহর- সিরিয়ায় অবস্হিত।
১৩। রাক্কা শহর – সিরিয়ায় অবস্হিত । আইএস ঘোষিত খেলাফতের রাজধানী ‘রাক্কা’ ।
১৪। তেল আরাফ – শহরটি – ইরাকে অবস্হিত । আইএস অধ্যুষিত এলাকা ।
১৫। মসুল – শহরটি ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর। আইএস অধ্যুষিত এলাকা। ঐতিহাসিক গ্র্যান্ড আল- নুরি মসজিদটি মসুল শহরে অবস্হিত। হেলানো মিনারের জন্য বিখ্যাত মসজিদটি ১১৭২- ৭৩ সালে নির্মিত হয়।
১৬। ইনসেন – মিয়ানমারের বিখ্যাত কারাগার ।

বাংলাদেশ – মিয়ানমারের কিছু

১। তুমব্রু – ঘুনধুম সীমান্ত — বান্দরবনের নাইক্ষ্যংছড়িতে অবস্হিত।
২। নাইক্ষংদিয়া স্হানটি – বাংলাদেশ( টেকনাফ ) ও মিয়ানমার সীমান্তে অবস্হিত ।
৩। নেটং পাহাড় – কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার নাইট্যংপাড়ায় অবস্হিত।
৪। শাহপরীর দ্বীপ – কক্সবাজারের টেকনাফে অবস্হিত।
৫। সিত্তে – মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের রাজধানী।
৭। মংডু – বাংলাদেশ ও মিয়ানমার সীমান্তে অবস্হিত।
৮। পালংখালী সীমান্ত – কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলায় অবস্হিত।
৯। শূন্যরেখা স্হানটি – বান্দরবনের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে অবস্হিত।
১০।ঘোলারচর সৈকত – কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার শাহপরীর দ্বীপে অবস্হিত।